একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য বাংলা ছায়াছবি পর্ব ৭

0
66

একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য বাংলা ছায়াছবি – ৭

বিকেল পাঁচটা বাজে। নওরিন একটা ব্যাগ নিয়ে বের হয়েছে, গাজিপুরে যাবে। ফার্মগেট গিয়ে ওখান থেকে বাসে উঠবে।
সন্ধ্যার আগে পৌছাতে পারবে বলে মনে হয় না৷
মামাতো ভাই শায়নকে ডেকে নিলে, ও এসে বাড়িতে নিয়ে যাবে৷ ব্যাগে ফোন ভাইব্রেট করছে।

নওরিন ফোনটা পিক করল, অমিত!

হ্যালো..

আপনি কি বাইরে? ভাইভা কেমন হলো

ভাইভা কেমন হয়েছে বুঝতে পারছি না, বলেছে সিলেক্টেড হয়েছি। এখন গাজীপুরে যাচ্ছি। বাসের জন্য দাঁড়িয়ে আছি ফার্মগেট।

অমিত এফডিসিতে ছিল, অমিতের পূবাইলে শ্যুট আছে, আটটায় কল টাইম, সারারাত কাজ হবে। অমিতও বের হবে কিছুক্ষণ পরে।

আমিও ওই দিকে যাব, আমার একটা জরুরি কাজ আছে৷ আমার সাথে একটা গাড়ি আছে, আপনি কি আমার সাথে যাবেন? যদি আপত্তি না থাকে আর কি!

নওরিন বলল, কোথায় যাবেন আপনি?

কুঞ্জছায়া পিকনিক স্পট। শহর ছাড়িয়ে আরো কিছুদূরে।

নওরিনের মামার বাসা মূল শহরে। অমিতের সাথে বার কয়েক দেখা হয়েছে, সত্যি কিন্তু বিশ্বাস করা যায় কি!

আপনি কি চিন্তা করছেন, বিশ্বাস করা যায় কিনা?

নওরিন বলল, হ্যা ঠিক বলেছেন। সমস্যা নেই, যাব আপনার সাথে। আমি এখানেই অপেক্ষা করব?

আপনি কোনো একটা রেস্টুরেন্টে বসুন, আমি এসে আপনাকে পিক করে নিচ্ছি।

আচ্ছা।

নওরিন শাড়ি বদল করার সময় পায় নি, ভাইভা দিয়ে মেসে গিয়ে ব্যাগটা নিয়ে বের হয়েছে। বাড়িতে কল করে কিছু জানায় নি যে, জব হয়েছে বা অন্য কিছু। এপয়েন্টমেন্ট লেটার দিতে ঘন্টাখানের দেরি হবে বলছিল, নওরিন বলেছে, রবিবারে এসে নিবে। সত্যি জব হলে দুই দিনে জব চলে যাবে না। আর সে কোনো সুপারিশ করায় নি, তাই মনে হচ্ছিল কোনো একটা ভুল হয়েছে, অন্যকারো সাথে তাকে মিলিয়ে ফেলছে।

অমিত রিয়াজুলকে ডেকে বলল, নওরিন আমার সাথে যাচ্ছে। তুমি প্রোডাকশনের গাড়িতে যাও, অথবা আমার সাথেও যেতে পারো, পুরো পথে কোনো কথা বলবে না। কোনোভাবেই যেন নওরিন বুঝতে না পারে আমি আসলে কে।

রিয়াজুলের আসলে অমিত স্যারের এই রিয়েল লাইফ লাভ স্টোরি দেখার শখ হচ্ছিল। তাই সে বলল, স্যার, আপনার সাথেই যাই, প্রোডাকশন তো আগেই চলে গেছে শাহিন ভাইয়ের সাথে।

ঠিক আছে, কথাটা মাথায় রাইখো।

অমিতের গাড়ি ফার্মগেটে থামল। অমিত মাথায় ক্যাপ দিয়ে মুখ ঢেকে নিচে নেমে এলো। কোথাও নওরিনকে দেখতে পেলো না৷ তাই কল করল।

পাশেই একটা পার্পল শাড়ি পরা মেয়ে, অমিতের ফোন পিক করে হ্যালো বলল। অমিত ৩০ সেকেন্ড সময় নিয়ে চিনতে পারলো৷
-আপনি!
এই শাড়ি পরা মিষ্টি মেয়েটাই নওরিন, এই রূপ এতদিন কোথায় ছিল!

চলবে

শানজানা আলম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here