একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য বাংলা ছায়াছবি পর্ব ৬

0
66

একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য বাংলা ছায়াছবি -৬
অমিত ফোন চেক করার সময় পেল অনেক রাতে। লাইভের পরে ওদের ওখানেই ডিনারের ব্যবস্থা ছিল।
কিছুক্ষণ আড্ডা দিয়ে ফিরতে ফিরতে রাত হয়ে গিয়েছিল। কল ব্যাক করল কিন্তু নওরিন তখন ঘুমিয়ে পড়েছে। পরের কয়েকদিন অমিত বেশ ব্যস্ততায় সময় পার করল। নওরিনও আর অমিতকে ফোন করে নি। সেভ দ্য ন্যাচারের ভাইভা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে গিয়েছিল।

অমিতের শ্যুটিং ফ্লোরে একদিন প্রডিউসার আকরাম সিরাজি এলেন। আকরাম সিরাজি ব্যবসায়ী, বেশ ক্ষমতাবান। বাবা ঢাকার একটি আসনের সংসদ সদস্য, কলিমুল্লাহ সিরাজি। হিরোর সাথে আলাপের সময় অমিত হঠাৎ বলল, ভাই, আমার একটা ফেভার প্রয়োজন, আপনি আমাকে একটু হেল্প করতে পারবেন? একচুয়েলি আংকেলের সাহায্য প্রয়োজন।

হ্যা, কেন নয়! বলো ছোটোভাই, কি লাগবে তোমার?
আকরাম সিরাজি বেশ আন্তরিক ভাবেই বললেন।

ভাইয়া, একটা এনজিওতে একজনের জবের বিষয়ে সহযোগিতা প্রয়োজন। এপ্লিক্যান্টের ভাইভা এই যে কাল, বৃহস্পতিবার।

তুমি আমাকে নাম ঠিকানা লিখে দাও হোয়াটসঅ্যাপে।
আমি দেখছি কি করা যায়।

অমিত ওর কাছে নওরিনের যতটুকু তথ্য ছিল, সেটা লিখে দিলো। দেখা যাক কি হয়।

★★★

নওরিন বেশ পরিপাটি হয়ে ভাইভা দিতে গেল। অপেক্ষা করতে করতে লাঞ্চ আওয়ার হয়ে গেল, তবুও নওরিনের ডাক এলো না।প্রায় তিনটা বেজে যাচ্ছে দেখে নওরিন ঠিক করল, ও চলে যাবে। আরও দশজন বাকি, সন্ধ্যা হয়ে যাবে, মামার বাসায় যাওয়া হবে না এর বেশি দেরী হলে।

ও উঠে বের হয়ে যেতে উদ্যত হলো৷ তখনি ওকে ভেতরে ডাকল। সবার সিরিয়াল ওয়াইজ কল এলেও
নওরিনকে আগে কল করা হলো।

ভাইভা বোর্ডে ওকে তেমন কিছু জিজ্ঞেস করা হলো না। ওর সিভি দেখে, এক্সাম খাতাটা দেখে একজন জিজ্ঞেস করলেন, নওরিন, বলেন তো জাতীয় মাছের নাম কি?

নওরিন কনফিউজড হয়ে গেল, এতদিন তো ইলিশ ছিল, এখনো কি ইলিশ? নাকি পাঙ্গাস হয়ে গেছে, ইলিশ হলে তো জিজ্ঞেস করত না।

নওরিন ঘাম মুছল।

নার্ভাস বোধ করছেন? আপনি জানেন না জাতীয় মাছ কোনটা?

জি জানি। ইলিশ।

তাহলে এত সময় নিলেন কেন?

দ্বিধায় পড়ে গিয়েছিলাম স্যার, ইলিশ কি আছে, নাকি পাল্টে গেছে, এত সহজ প্রশ্ন তো করার কথা না।

নওরিন, আপনার ব্যাকআপ তো বেশ জোরালো। এত হাই প্রোফাইলে আপনার জানাশোনা, তাহলে এখানে জব করতে চাইছেন কেন, সরকারি জবের জন্য চেষ্টা করতে পারেন তো!

নওরিনের মাথার উপর দিয়ে গেল।

হাই প্রোফাইল জানাশোনা! কোথায়, থাকলে তো নওরিনের ভালোই হতো। ফকিন্নি হয়ে থাকতে হতো না।

জি বুঝতে পারলাম না স্যার।

বুঝতে হবে না। আপনি জয়েন করবেন নেক্সট উইকে, এপয়েন্টমেন্ট লেটার নিয়ে চলে যান বাসায়।
কংগ্রাচুলেশনস।

নওরিনের বিশ্বাস হচ্ছে না। গলা শুকিয়ে যাচ্ছে। নওরিন বলল, স্যার, আমি কি একটু পানি পান করতে পারি?

হ্যা, সিওর।

সামনে রাখা গ্লাস থেকে ঢক ঢক করে নওরিন পানি খেয়ে নিলো।

চলবে

শানজানা আলম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here